করোনাঃ প্রকৃতির নিদর্শন

সোমবার এপ্রিল ২০, ২০২০ ১০:২৩

১২৭ views

মানবজাতির জানার অসীম মহান এই প্রকৃতির অস্তিত্বের অত্যন্ত ক্ষুদ্র একটি ইউনিট এই পৃথিবীর সৃষ্টি হয়েছিল ৪.৫ বিলিয়ন বছর আগে। ধাপে ধাপে কিছুটা উন্নতি হয়ে ৩.৫ বিলিয়ন বছর আগে প্রানের উৎপত্তির পরিবেশ সৃষ্টি হয়। তারপর এইতো সেদিন ৬৫০ মিলিয়ন বছর আগে প্রানের সৃষ্টি হয়েছে।

৪৫০ মিলিয়ন বছর আগে প্রকৃতির খেয়ালে ৭৫% জীবন বিলুপ্ত হয়ে যায়। তার কিছুদিন পর আবার প্রকৃতির খেয়ালে ২৫২ মিলিয়ন বছর আগে প্রায় ৯০% প্রান বিলুপ্তি হয়ে যায়। মাত্র ২০০,০০০ (দুইশত হাজার) বছর পূর্বে মানব সম্প্রদায়ের সৃষ্টি হয়। মাত্র ১০,০০০(দশ হাজার) বছর পূর্বেও মানুষ শিকারি ছিল। তারপর ধীরে ধীরে গুহা থেকে নিজেদের তৈরি বাসস্থানে বসবাস করতে শিখেছে।

কিন্তু কি শুরু করেছে মানুষ? পরিবারের জন্য, কর্মক্ষেত্রে জন্য, সমাজের জন্য, দেশের জন্য অথবা এই পৃথিবীর জন্য কি করতেছে? মানুষ সহ সকল প্রানীর জন্য আহার এর ব্যবস্থার জন্য আছে গাছ, মাটি, নদী ও সাগর। মানুষ গাছ কেটে ফেলতেছে অবলীলায়, বন ধংস করতেছে, নদী নালা, সাগর, পাহার সব সাবাড় করে ফেলতেছে, পৃথিবীর গভীর থেকে গভীরেও হানা দিচ্ছে। অন্যায় যুদ্ধ বিগ্রহে লিপ্ত হচ্ছে। এমন কোন অন্যায় নাই যা থেকে মানুষ মুক্ত আছে। পৃথিবীর সকল সম্পদ ধংস করে ফেলতেছে। কিন্তু মানুষকে কতক্ষন সহ্য করবে পৃথিবী অথবা মহান প্রকৃতি? মানুষের ধারনার চেয়ে অসীম প্রকৃতির অস্তিত্ব, কিন্তু মানুষের আশেপাশের বহুদূর আলোকবর্ষ পর্যন্ত এত সুন্দর একটি গ্রহ কিংবা সৌরজগত সৃষ্টি হয়নি।
প্রকৃতির অত্যন্ত নগন্য একটি ইউনিট পৃথিবী নামক গ্রহটি শুধু মানুষের অত্যাচারে জর্জরিত হয়েছে। মহান প্রকৃতি প্রতি শতকে মানবজাতিকে একটি করে সিগনাল/নিদর্শন পাঠাচ্ছে, বোঝাতে চাচ্ছে- হে মানবজাতি তুমি অতি ক্ষুদ্র, অতি নগন্য, তোমাকে ধংস করে ফেলতে পারি আমি এমন কিছু দিয়ে অথবা তোমাকে আক্রান্ত করতে পারি এমন কিছু দিয়ে যার অস্তিত্ব জীবন এবং মৃত্যুর মাঝখানে (ভাইরাস), যে এমনকি পিপড়ার মত একটি প্রানী ও নয়!

১৭২০,১৮২০,১৯২০,২০২০ সালের মহামারী কাকতালীয়? তোমাকে কেন বাঁচিয়ে রাখব? পৃথিবী কি শুধু তোমার জন্যই? অন্য প্রানীদের জন্য কি প্রকৃতির মায়াদয়া কিংবা দায়দায়িত্ব নেই? তাঁদেরকে লালনের ভার কি মহান প্রকৃতির নয়? তোমাদের এত বড় সাহস কি করে হয়, তোমরা পৃথিবী নামক ইউনিটটি ধংস করার মত সমরাস্ত্র/বোমা বানিয়েছ? তোমাদের এই মানবজাতিকে ধংস করে দিলে আমার কি আসবে যাবে?

আমি কি ইতিমধ্যেই বহু প্রান, বহু প্রানী, বহুবার সব কিছু ধংস করে দেইনি? তুমি কি খেয়াল করনি যে তোমাদের উন্নতির(?) সাথে সাথে আমি এই মহাবিশ্বকে ক্রমেই প্রসারিত করতেছি, যা শত শত আলোক বর্ষ দূর থেকে দূরে চলে যাচ্ছে? তোমরা কি বুঝতে পারছনা তোমারা কত ক্ষুদ্র!কত সামান্য!কত অকৃতজ্ঞ! কত বেয়াকুফ!

আমি হয়ত মানব জাতিকে আরো ৫ বিলিয়ন বছর বাঁচিয়ে রাখতে পারি, কিন্তু তোমরা যদি নিজেদের ধংস নিজেরাই আরো আগে ডেকে আন, আমি বিরক্ত হয়ে তোমাদের জাতিকে যেকোন সময় ধংস করে দিতে পারি। কারন মানব জাতির মত নির্বোধ কোন অস্তিত্বের আমার প্রয়োজন নেই!

আমার সিগনাল কে গুরুত্ব দাও, সময় থাকতে সাবধান হও।

(Visited 1 times, 1 visits today)
মতামত জানান