ভালোবাসা বুঝে নিতে হয় : চার

সোমবার এপ্রিল ১৩, ২০২০ ০৬:৫৮

পাতাটি ৩৮৫ বার পড়া হয়েছে।

৩য় পাতার পর….

প্রতিদিন কথা হতো না আমাদের, ব্যস্ততার কারনে। মাঝেমাঝে রাতে ভালোমন্দ কথা হতো সাথে কিছু প্রেমালাপও। এভাবে দিন কাটতে লাগলো আমরাও অনেকটা ক্লোজ হতে লাগলাম। আকাশ কে মনে মনে আমিও চাইতে লাগলাম তাকে প্রকাশ্য ভাবে বলা হয় নাই তবু ভালো লাগাটা মনে মনে গভীর হতে লাগলো।

একদিন দুজনে কোথাও দেখা করার পরিকল্পনা করলাম। কিন্তু দুজনের ই সময়ের বড় অভাব তাই পরিকল্পনা করেও বাস্তবায়ন হচ্ছিলো না। সে সন্ধ্যার পর টিউশন করাতো আর আমিও অফিস শেষে সন্ধ্যায় ই অবসর হতাম এজন্য সময় মিলছিলো না।

অনেক দিন পর এক সন্ধ্যায় সময় বের করলো সে। দেখা করতে যাবার আগে কিছুটা ইতস্তত বোধ হচ্ছিলো। প্রথম বার ওর সামনাসামনি হবো, কি কথা বলবো, ওর চোখে তাকাতে পারবো তো?

আমাদের শহরের এক দিঘীর পাড়ে গেলাম। কিছুখন হাটলাম আমরা তারপর ঘাটে বসলাম। অযথা কথা বলেই সময় কাটাতে লাগলাম দুজনে। মেসেজে অনেক কথা বলা গেলেও সরাসরি বলতে পারছি না কেউই। মনে হচ্ছিলো কত কথা বলার ছিলো কিন্তু এখন সব ভূলে গেছি।

তবুও ওর সাথে সময় কাটাতে ভালো লাগছিলো। ইচ্ছা করছিলো সারা রাত দিঘীর পাড়েই হাটি। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ছিলো তাই আমার আকাশের বেশিখন থাকা হয়নি। দিঘীর পাড় ধরেই হেটে রওনা হলাম বাড়ি ফেরার জন্য। উত্তর পাড়ে এসে একটা রিক্সায় করে যাচ্ছিলাম দুজন হঠাত ও আমার হাত ধরলো বেপারটা অন্য রকম লাগছিলো প্রথমে যাক পর মুহূর্তে স্বাভাবিক হয়ে গেছি।

এর মাঝে আমরা গন্তব্যে চলে এলাম। আমাকে বাসায় পাঠিয়ে দিয়ে সে চলে গেলো। বাসায় আসা পর্যন্ত ওকে মিস করছিলাম। অইদিন আকাশের সাথে কাটানো সময় গুলো বারবার ফিরে পেতে ইচ্ছে করছিলো। এক অজানা ভালো লাগা আর ভালোবাসার অনুভূতি জড়ানো স্মৃতি যা হয়তো কখোনোই ভূলার না আর ভূলতেও চাই না আকাশের সাথে আমার সেই প্রথম দেখা।

রাতে আকাশ মেসেজ দিলো – কি করো? (কিছুদিন হয় আমরা একে অন্যকে তুমি করে সম্বোধন করি।)

রিপ্লাই দিলাম- শুয়ে আছি। তুমি?

– আমিও শুয়ে আছি। আমার কোনো আচরনে আজ রাগ হয়েছো?

কিছুখন ভেবে জবাব দিলাম- না, রাগের কাজ করেছিলা নাকি?

– ভালোবাসি তোমাকে তাই তোমার প্রতি অনেক অধিকার আমার এমন মনে হয় যদিও জোর করে অধিকার খাটাবো না কখোনোই। তুমি ভালোবাসার অনুমতি দিলে ভালোবাসবো।

ওর লেখা দেখে যাচ্ছিলাম শুধু কি লিখবো বুঝতে পারছিলাম না। সে আবার লিখলো

– কি হলো চুপ হয়ে গেলে যে?

– তুমি কি সত্যিই আমাকে ভালোবাসো?

– হ্যা, অনেক অনেক ভালোবাসি তোমাকে। আর এটা অনেক আগে থেকেই বলতে পারিনি তোমাকে মুখ ফুটে।

– এই ভালোবাসার গন্তব্য কতদুর?

– যতদিন আমার এই দেহে প্রান আছে ততদিন তোমাকে আমি ভালোবেসে যাবো।

কথাগুলো সত্য হলেও আবেগী মনে হলো। হয়তো সে আবেগে আছে এই আবেগ তার মনে সারাজীবন থাকবে না।

চলমান….

ভালোবাসা বুঝে নিতে হয়

মতামত জানান