প্রিয়ার প্রতি

শনিবার অক্টোবর ৩, ২০২০ ১০:৫০

পাতাটি ১০০ বার পড়া হয়েছে।

এখানে একদা বটবৃক্ষ ছিল, আজ সে শুধু স্মৃতি,
এখানে ভালোবাসার আশা ছিল, নির্মম পরিণতি
ভাগ্যের; ছায়া নেই, মায়া নেই, কান্নার শব্দ শুনি
বুকের গহীনে৷ ফিরে এসো প্রিয়তমা, হোক সুমতি!

আমার কবরের পরে আজ গজিয়েছে সবুজ ঘাস,
সাদা সাদা ফুলে সেজেছে দেখ, শেষ শরতের কাশ;
তুমি একবার এসো, তোমার নবীন প্রিয়ের সাথে যাও
দেখে; মেঘেরা কেমন সাজিয়েছে আমার আকাশ৷

হে পাষাণ হৃদয়! আমার রজনীগুলো নিদ্রাহীন নয়
আর; অন্তত ঘুমে আমি শ্রান্ত, তবু কেটে যায় সময়৷
এখন শুধু অবসর আর অবসর, তোমাকে ভেবে
ভেবে ক্লান্ত হই না, তবু ভালো লাগে তোমার সুসময়৷

মৃত্যুর ঠিক আগে আগে, সে কথা তোমাকে বলা হয়নি,
আমাকে খুবলে খাচ্ছিল এক নারী— সোনালী শকুনী!
সেই তুমি অথবা অন্য কেউ, মনে পড়ে না তার চেহারা—
চোখ, নাক, কান সব খেয়েছে, হৃদয়টাও বাকী রাখেনি৷

আমার পাঁজরে আজ হাসে, লুটুপুটি খেলে কাশেরা,
গুগলি খুঁজে ফেরে স্বপ্নের সাদাপক্ষ, রাঙা পা হাঁসেরা!
তুমি একবার এসো, পাশেই ফুটেছে কোন সুগন্ধী ফুল,
পরিযায়ী বকে বকে দারুণ সেজেছে আজ বাঁশেরা৷

মখমলের মতো সবুজ ঘাস, নারীর মতো তুলতুলে—
নানা রঙের ফড়িং, চেনা-অচেনা নানা রঙের ফুলে
সেজেছে আমার কবর, একবার দেখে যাও, আমিও
দেখিব তোমায়! না হয় এসো একবার, মনের ভুলে৷

মতামত জানান